মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

স্বেচ্চাসেবী সংগঠন

(একটি সামাজিক সেচ্চাসেবী উন্নয়ন মূলক সংগঠন)

সুবিধা বঞ্চিত দরিদ্র জনগোষ্ঠির মৌলিক ও প্রযুক্তিগত অধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সমাজের ইতিবাচক পরিবর্তন আনায়ন।

“সামাজিক উন্নয়ন প্রচেষ্টা” উত্তাঞ্চল জনপদের গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার রাজাহার ইউনিয়নের প্রাণ কেন্দ্রে বানেশ্বর বাজারে ৫ই জানুয়ারী২০১৪ খ্রিঃ তারিখে প্রতিষ্ঠা লাভ করে।

{ ভৌগোলিক অবস্থানগত কারনে উত্তরাঞ্চলের গাইবান্ধা জেলা একটি অতিমাত্রায় দূর্যোগ প্রবণ এলাকা। নদী বেষ্টিত এলাকা হিসাবে প্রত্যন্ত অঞ্চলে তথা গোবিন্দগঞ্জ প্রাণ কেন্দ্র থেকে ১৯ কিলোমিটার অদূরে সু-পরিচিত এবং রাজাহার ইউনয়নের বানেশ্বর বাজার।  অতীতের দৃশ্যপট স্মৃতি এখনো সবার হৃদয় কে নাড়া দিয়ে কর্মচাঞ্চল্য হতে জাগ্রত করে। অতীত কে নয় বর্তমান প্রজন্মকে সঠিক পথে সু-শিক্ষায় শিক্ষিত করে এবং প্রযুক্তিগত দক্ষতা বাড়িয়ে দেশ ও সমাজের উন্নয়নের দুয়ার উন্মোচন করতে চার সমষ্টিগত উদীয়মান যুবকের মেধায় ও উন্নয়ন ভাবনায় “সামজিক উন্নয়ন প্রচেষ্টা” নামে একটি সংগঠন প্রতিষ্ঠিত হয়। দারিদ্রতার কষাঘাতে আলোর প্রদীপ-শিখা নিভে যাবে এমন ব্যর্থতা ওই চার উদীয়মান উন্নয়ন ভাবনাকামী যুবককে ব্যথিত করেছিল, আর সেই থেকে জাগ্রত হয়ে উঠেছিল “মোরা আলোর প্রদীপ জ্বালাবো” এপ্রত্যাশাকে সামনে রেখেই এলাকার দরিদ্র জনগোষ্ঠির কাঙ্খিত চাহিদা নিরসনের মাধ্যমে সামাজিক উন্নয়ন গড়ার যাত্রা শুরু হয়। দরিদ্র জনগোষ্ঠির মৌলিক চাহিদা-নিশ্চিত করণে সুবিধা বঞ্চিত মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় আপোষহীন হিসাবে সমাজের ইতিবাচক পরিবর্তন আনায়ন একমাত্র লক্ষ্য। সেই লক্ষ্য পূরণে রাজাহার ইউনিয়নের সকল শ্রেণী ও পেশার মানুষের সক্রিয় অংশগ্রহণ ও সমন্বয়ের মাধ্যমে মান সম্মত শিক্ষা, স্বাস্থ্য-সুরক্ষা, নারী-পুরুষের বৈষম্য দূরিকরণ, তথ্য ও প্রযুক্তির মাধ্যমে সমাজের উন্নয়ন, প্রাকৃতিক দূর্যোগে আক্রান্ত জনগোষ্ঠিকে উদ্ধার, অপসারণ ও আশ্রয় কেন্দ্র ব্যবস্থাপনা, সর্বপরি উন্নয়ন সচেতনতার ব্রত নিয়ে এগিয়ে যাওয়া প্রধান উদ্যেশ্য।  দারিদ্র সীমার নিচে বসবাসরত দরিদ্র পরিবারের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সু-শিক্ষায়, শিক্ষিত করে দেশ-জাতী ও সমাজের উন্নয়নে অবদান রাখতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে সামাজিক উন্নয়ন প্রচেষ্টা। আমরা প্রত্যাশা করি আমাদের লক্ষ্য পূরণে সমাজের সকল স্তরের মানুষ সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে সামাজিক উন্নয়নে অংশগ্রহণে সারা দিবে} 

 

 


Share with :

Facebook Twitter